রেডিয়ো কার্বন ১৪ পদ্ধতি কি?

 রেডিয়ো কার্বন-১৪ ডেটিং পদ্ধতি

রেডিয়ো কার্বন ১৪ পদ্ধতি
রেডিয়ো কার্বন ১৪ পদ্ধতি

রেডিওকার্বন ডেটিং, যা কার্বন-১৪ ডেটিং নামেও পরিচিত, একটি মূল্যবান বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি যা ঐতিহাসিক সময়কাল থেকে জৈব পদার্থ এবং শিল্পকর্মের বয়স নির্ধারণ করতে ব্যবহৃত হয়। প্রক্রিয়াটির বয়স অনুমান করার জন্য নমুনায় অবশিষ্ট কার্বন -১৪ আইসোটোপের পরিমাণ পরিমাপ করে। সজীব উদ্ভিদ বা প্রাণী দেহে রেডিয়োকার্বন (C-14) ও অতেজস্ক্রিয় কার্বন (C-12)- এর একটি সুনিদৃষ্ট অনুপাত বজায় থাকে। মৃত্যুর পর কার্বনসমৃদ্ধ যে-কোনো নমুনায় রেডিয়ো কার্বনের পরিমাণ কমে আসে। কিন্তু C-12-এর পরিমাণ অপরিবর্তিত থাকে। তাই পুরাতাত্ত্বিক অনুসন্ধানের সময় কোনো প্রাচীন কাঠ, প্রাণীদেহের অস্থি ইত্যাদিতে C-14 ও C-12-এর পরিমাণের অনুপাত পর্যবেক্ষণ করে সেগুলির বয়স নির্ণয় করা যায়। কাজেই রেডিয়ো কার্বন একটি তেজস্ক্রিয় ঘড়ি হিসাবে কাজ করে। এখানে রেডিয়ো কার্বন ১৪ পদ্ধতির মূল বিষয়গুলি নিচে দেওয়া হল:

 কার্বনের তেজস্ক্রিয় আইসোটোপ

রেডিয়ো কার্বন ১৪ হল কার্বনের একটি তেজস্ক্রিয় আইসোটোপ যা প্রাকৃতিকভাবে পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলে থাকে। এটি তৈরি হয় যখন মহাজাগতিক রশ্মি উপরের বায়ুমণ্ডলে নাইট্রোজেনের সাথে সংযোগ করে। বৈজ্ঞানিক বলেন, পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলে মহাকাশ-রশ্মি ও নাইট্রোজেন পরমাণুর সংঘাতে তেজষ্ক্রিয় কার্বন-১৪ নিতাই সৃষ্ট হচ্ছে।

 কার্বন ১৪ ধ্রুবক উৎপাদন এবং ক্ষয় 

প্রাণী ও উদ্ভিদ উভয়ই আত্মসাৎ করে। উদ্ভিদ আবহাওয়া থেকে এই কার্বন সংগ্রহ করে এবং প্রাণীরা ঘাস-পাতা, ফল-মূল ভক্ষণ করে বলেই সেই কার্বন তাদের দেহেও প্রবেশ করে এবং সেখানে জমা হতে থাকে। যতদিন প্রাণী ও উদ্ভিদের মধ্যে জীবন থাকে ততদিন এই কার্বন প্রক্রিয়াও থাকে অব্যাহত। মৃত্যুতে এই প্রক্রিয়ার পূর্ণ বিরতি। তারপর যতদিন যায় কার্বন-১৪ বস্তু ও প্রাণীর অবয়ব থেকে নিঃসৃত হতে থাকে। ১৯৪৬ খ্রিস্টাব্দে উইলার্ড লিবি মৃত-জৈবপদার্থে কার্বন-১৪-র পরিমাণ স্থির করে, করে কার মৃত্যু ঘটেছিল বার করতে সচেষ্ট হন।

"রেডিয়ো কার্বন ডেটিং পদ্ধতির আবিষ্কর্তা উইলাউ লিবি ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের পরমাণু বিজ্ঞানের অধ্যাপক ছিলেন। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ চলাকালে মার্কিন সরকার তাকে অ্যাটম বোমা তৈরির ব্যাপারে মানহাটান প্রকল্পে নিযুক্ত করে। এই কাজ করতে করতে লিবি জৈববস্তুতে তেজস্ক্রিয় কার্বন-১৪ নির্ণয় করার বিষয়টি সম্বন্ধে কৌতূহলী হয়ে ওঠেন।

১৯৫৫ খ্রিস্টাব্দে তিনি তাঁর গবেষণাপত্রে জানান, জৈব পদার্থে রেডিও তরঙ্গ বিকিরণের পরিমাণ স্থির করে বস্তুর সময়কাল নির্ণয় করা সম্ভব। যদিও তাঁর হিসাব একেবারে নির্ভুল নয় এবং যদিও এতে বেশ কিছু বছরের গরমিলের সম্ভাবনার কথা এড়ানো যায় না তবুও এই অভিনব পদ্ধতি প্রত্নতাত্ত্বিক গবেষণায় এক নবদিগন্তের সূচনা করে। লিবির কাজ পণ্ডিত মহলে স্বীকৃত হল এবং ১৯৬০ খ্রিস্টাব্দে এই যুগান্তকারী গবেষণার জন্য তিনি নোবেল পুরষ্কার পেলেন।" Source: শাজাহান খান, "আদি পর্বের ভারত ইতিহাস "

 অর্ধ-জীবন পরিমাপ

কার্বন-১৪ -এর অর্ধ-জীবন প্রায় 5,730 বছর। এর মানে হল যে এই সময়ের পরে, একটি নমুনায় আসল কার্বন -১৪ এর অর্ধেক নাইট্রোজেনে ক্ষয় হয়ে যাবে।

 কার্বন ১৪‌ ক্ষয় পরিমাপ

একটি নমুনায় স্থিতিশীল কার্বন আইসোটোপের (কার্বন-১২ এবং কার্বন-১৩) সাথে কার্বন-১৪ -এর অনুপাতের তুলনা করে, বিজ্ঞানীরা ক্ষয়প্রাপ্ত কার্বন-১৪ -এর পরিমাণ নির্ধারণ করতে পারেন এবং বয়স অনুমান করতে পারেন।

 কার্বন ১৪ বয়সের সীমাবদ্ধতা

রেডিওকার্বন ডেটিং প্রায় 50,000 বছর বয়স পর্যন্ত ডেটিং উপকরণের জন্য কার্যকর। এই বিন্দুর বাইরে, অবশিষ্ট কার্বন -১৪ এর পরিমাণ সঠিকভাবে পরিমাপ করার জন্য খুব ছোট হয়ে যায়।

 কার্বন -১৪ ক্রমাঙ্কন রেখচিত্র 

যেহেতু বায়ুমণ্ডলীয় কার্বন -১৪ মাত্রা সময়ের সাথে পরিবর্তিত হয়েছে, ক্রমাঙ্কন রেখচিত্রগুলি কাঁচা রেডিওকার্বন তারিখগুলিকে সামঞ্জস্য করতে ব্যবহার করা হয়। আরও সঠিক কালানুক্রমিক ফলাফল প্রদান করে এই পদ্ধতি।

 রেডিয়ো কার্বন ১৪ পদ্ধতি প্রয়োগ

রেডিয়ো কার্বন ১৪ পদ্ধতি প্রত্নতাত্ত্বিক স্থান থেকে হাড়, কাঠ এবং কাঠকয়লার মতো জৈব অবশেষের ডেটিং করার ক্ষেত্রে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। যা মানব ইতিহাস, প্রাচীন সংস্কৃতি এবং জলবায়ু পরিবর্তনের গুরুত্বপূর্ণ অন্তর্দৃষ্টি প্রদান করে।

 রেডিয়ো কার্বন ১৪ পদ্ধতি সীমাবদ্ধতা

সম্ভাব্য দূষণ বিবেচনা করা গুরুত্বপূর্ণ, যা রেডিয়ো কার্বন ১৪ পদ্ধতি এর নির্ভুলতাকে প্রভাবিত করতে পারে। উপরন্তু, পদ্ধতি জৈব উপাদান ছাড়া ডেটিং উপকরণ জন্য উপযুক্ত নয়।

 রেডিয়ো কার্বন ১৪ মিশ্র পদ্ধতি

বিজ্ঞানীরা প্রায়ই রেডিয়ো কার্বন ১৪ পদ্ধতিকে অন্যান্য ডেটিং পদ্ধতির সাথে একত্রিত করেন। যেমন ডেনড্রোক্রোনোলজি (tree-ring dating) এবং Optically Stimulated Luminescence  (OSL) ব্যবহার করে ক্রস-ভ্যালিডেট এবং কালানুক্রমিক ফলাফল পরিমার্জন করতে।

 কার্বন ১৪ পদ্ধতি অগ্রগতি

বছরের পর বছর ধরে, রেডিয়ো কার্বন ১৪ পদ্ধতি কৌশলের অগ্রগতি হয়ে চলেছে। যেমন Accelerator Mass Spectrometry (AMS) প্রভৃতি নির্ভুলতা উন্নত করেছে এবং সঠিকভাবে তারিখ হতে পারে এমন উপকরণের পরিসরকে প্রসারিত করেছে।

পরিশেষে বলা যায়, কার্বন-১৪ পরীক্ষা প্রত্নতত্ত্বের এক নবদিগন্তের ইঙ্গিত দিলেও আমাদের মনে রাখতে হবে, এই পদ্ধতি যে সম্পূর্ণ ত্রুটিহীন সে কথা কেউ বলেন না। যে প্রত্নবস্তু ৪০ হাজার বছরের বেশি পুরাতন, তাকে এই পরীক্ষায় অন্তর্ভুক্ত করা যাচ্ছে না। দ্বিতীয়ত, এর দ্বারা জৈব পদার্থ বিশ্লেষণেই সন্তোষজনক ফল পাওয়া যাচ্ছে—অজৈব পদার্থ, যেমন গয়নাগাটি, পাপ্পুরে অস্ত্র, ধাতুনির্মিত যন্ত্রপাতি ইত্যাদিকে নিয়ে আদৌ কোনো পরীক্ষা চলছে না। কোনো কোনো ক্ষেত্রে কয়েক শত বছরের গরমিলও দেখা দিচ্ছে—যাকে নগণ্য ত্রুটি বলে উড়িয়ে দেওয়া চলে না।

Related MCQ Question: রেডিয়ো কার্বন-১৪ ডেটিং পদ্ধতি

 1. প্রশ্ন: রেডিওকার্বন ডেটিংয়ে ব্যবহৃত মূল তেজস্ক্রিয় আইসোটোপ কী?

    ক) কার্বন -১০

    b) কার্বন-১২

    গ) কার্বন-১৪

    d) কার্বন-১৬

    উত্তর: গ) কার্বন-১৪

 2. প্রশ্ন: রেডিওকার্বন ডেটিং পদ্ধতি একটি নমুনায় কি অনুমান করে?

    ক) শিল্পকর্মের বয়স

    খ) এর সৃষ্টির সময়

    গ) কার্বন-১৪ এর ক্ষয় হার

    d) কার্বন-১৪ উৎপাদনের হার

    উত্তর: ক) শিল্পকর্মের বয়স

 3. প্রশ্ন: একটি জীব মারা যাওয়ার পর কার্বন-১৪ এর কী ঘটে?

    ক) এটি স্থিতিশীল থাকে।

    খ) এটি কার্বন-১২ -এ রূপান্তরিত হয়।

    গ) এটি একটি ধ্রুবক হারে ক্ষয় শুরু করে।

    ঘ) এটি পরিমাণে বৃদ্ধি পায়।

    উত্তর: গ) এটি একটি ধ্রুবক হারে ক্ষয় শুরু করে।

 4. প্রশ্ন: কার্বন-১৪ -এর আনুমানিক অর্ধ-জীবন কত?

    ক) 573 বছর

    খ) 5,730 বছর

    গ) 57,300 বছর

    ঘ) 573,000 বছর

    উত্তর: খ) 5,730 বছর

 5. প্রশ্ন: রেডিওকার্বন ডেটিংয়ে একটি নমুনার বয়স কিভাবে অনুমান করা হয়?

    ক) কার্বন-১২ বিষয়বস্তু পরিমাপ করে

    খ) কার্বন-১৪ -এর সাথে কার্বন-১০ অনুপাতের তুলনা করে

    c) নাইট্রোজেন-১৪ ক্ষয় গণনা করে

    d) স্থিতিশীল কার্বন আইসোটোপ অনুপাতের সাথে কার্বন-১৪ তুলনা করে

    উত্তর: ঘ) স্থিতিশীল কার্বন আইসোটোপ অনুপাতের সাথে কার্বন-১৪ তুলনা করে

 6. প্রশ্ন: রেডিওকার্বন ডেটিং এর জন্য ক্রমাঙ্কন বক্ররেখা কি কি ব্যবহার করা হয়?

    ক) কার্বন-১৪ এর অর্ধ-জীবন নির্ণয় করা

    b) কার্বন-১৪ উৎপাদনের হার পরিমাপ করা

    গ) বায়ুমণ্ডলীয় বৈচিত্রের জন্য কাঁচা রেডিওকার্বন তারিখগুলি সামঞ্জস্য করা

    d) ক্ষয়ের হার বিবেচনা ছাড়াই নিদর্শনটির বয়স অনুমান করা

    উত্তর: গ) বায়ুমণ্ডলীয় বৈচিত্রের জন্য কাঁচা রেডিওকার্বন তারিখগুলি সামঞ্জস্য করতে

 7. প্রশ্ন: কত বয়স পর্যন্ত রেডিওকার্বন ডেটিং কার্যকর হতে পারে?

    ক) 5,000 বছর

    খ) 50,000 বছর

    গ) 500,000 বছর

    ঘ) 5 মিলিয়ন বছর

    উত্তরঃ খ) ৫০,০০০ বছর

 8. প্রশ্ন: রেডিওকার্বন ডেটিং ব্যবহার করে নিচের কোন উপকরণের তারিখ নির্ধারণ করা যেতে পারে?

    ক) ধাতু

    খ) শিলা

    গ) জৈব অবশেষ

    d) অজৈব স্ফটিক

    উত্তরঃ গ) জৈব অবশেষ

 9. প্রশ্ন: রেডিওকার্বন ডেটিংয়ে অ্যাক্সিলারেটর মাস স্পেকট্রোমেট্রি (AMS) কী উন্নতি করে?

    ক) কার্বন-১৪ ক্ষয়ের হার

    খ) পরিমাপের নির্ভুলতা এবং নির্ভুলতা

    গ) কার্বন-১৪ উৎপাদনের হার

    d) কার্বন-১৪ -এর অর্ধ-জীবন

    উত্তর: খ) পরিমাপের নির্ভুলতা এবং নির্ভুলতা

 10. প্রশ্ন: রেডিয়ো কার্বন ১৪ পদ্ধতি-এ, ফলাফল ক্রস-ভ্যালিডেট করার জন্য সাধারণত কোন পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়?

     ক) ট্রি-রিং ডেটিং

     খ) ইউরেনিয়াম-সীসা ডেটিং

     গ) পটাসিয়াম-আরগন ডেটিং

     d) রুবিডিয়াম-স্ট্রনটিয়াম ডেটিং

     উত্তর: ক) ট্রি-রিং ডেটিং

Next Post Previous Post