নেপোলিয়নের আভ্যন্তরীণ সংস্কার আলোচনা কর।

  নেপোলিয়নের অভ্যন্তরীণ সংস্কার উন্মোচন

নেপোলিয়নের অভ্যন্তরীণ সংস্কার উন্মোচন
#নেপোলিয়নের-অভ্যন্তরীণ-সংস্কার-উন্মোচন

নেপোলিয়ন শুধু একজন দক্ষ সেনা নামে কি ছিলেন না ছিলেন একজন সুশাসক সংগঠক ও সংস্কারক। যুদ্ধ বিধ্বস্ত ফ্রান্সে বিধিবদ্ধ আইন প্রণয়নের মাধ্যমে ফ্রান্সে শান্তি প্রতিষ্ঠায় তার অবদানকে অস্বীকার করা যায় না। তার সম্পর্কে ঐতিহাসিক ফিসার তাঁর "A History of Europe" গ্রন্থে মন্তব্য করেছেন,"If the conquests were ephemeral, his civilian work in France was built upon granite. "

নেপোলিয়ন মূলত চারটি উদ্দেশ্য নিয়ে সংস্কার সাধনে ব্রতী হন,

  • ১। ফ্রান্সে একটি কেন্দ্রীভূত শাসনব্যবস্থা গড়ে তোলা।
  • ২। প্রচলিত শাসনব্যবস্থায় অর্থনীতি, শিক্ষা ও অন্যান্য ব্যবস্থার ত্রুটিগুলি দূর করা।
  • ৩। নতুন আইন প্রণয়নের মাধ্যমে বিপ্লবের সুফল জনগণের কাছে পৌঁছে দেওয়া।
  • ৪। উপোরিক্ত সংস্কারগুলির মাধ্যমে নিজের প্রভাব ও প্রতিপত্তি বৃদ্ধি করা।

অভ্যন্তরীণ ক্ষেত্রে নেপোলিয়ান যে সকল সংস্কার গ্রহণ করেন সেগুলি হল,

শাসনতান্ত্রিক সংস্কার:

শাসনতান্ত্রিক ক্ষেত্রে নেপোলিয়নের উদ্দেশ্য ছিল যুদ্ধবিধ্বস্ত প্রান্তে আইনের শাসন প্রবর্তন করে দেশবাসী শান্তি ও নিরাপত্তাকে সুনিশ্চিত এই উদ্দেশ্যে তিনি যে সকল পদক্ষেপগুলি গ্রহণ করেন তা হল,

  • ১। ফ্রান্সকে ৪৩ টি প্রদেশের বিভক্ত করে প্রত্যেক প্রদেশে একজন করে প্রিপেক্ট নিয়োগ করেন।
  • ২। কর্মচারী নিয়োগের ক্ষেত্রে নির্বাচনের পরিবর্তে যোগ্যতার উপর গুরুত্ব দিয়ে নিজের মনোনীত প্রার্থীদের নিয়োগ করেন।
  • ৩। প্রশাসন, প্রতিরক্ষা, বিদেশ নীতি, এমনকি আইন প্রণয়নের ক্ষমতাও নিজের হাতে তুলে নেন।
  • ৪। মেয়র, মন্ত্রী, আমলা, বিচারক, সেনাপতি প্রভৃতি কর্মচারীদেরকে তিনি নিয়োগ করতেন।

অর্থনৈতিক সংস্কার:

ঐতিহাসিক ডেভিড থমসন বিপ্লব-পূর্ব ফ্রান্সের অর্থনীতিকে "পুরাতন তন্ত্রের ক্যান্সার" বলে উল্লেখ করেছেন। তিনি তাঁর "Europe since Napoleon" গ্রন্থের নেপোলিয়ান সম্পর্কে বলেছেন, "The last and greatest of the 18th. Century benevolent despot." নেপোলিয়ন এই সমস্যা সমাধানের উদ্দেশ্যে এবং ফ্রান্সকে অর্থনৈতিক সংকট থেকে মুক্ত করতে বেশ কিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করেন,

  • ১। সরকারি কর্মচারীদের ব্যয় কমানোর নির্দেশ দেন।
  • ২। কেন্দ্রীয় অর্থ কে রাজস্ব ও অডিট এই দুই ভাগে ভাগ করেন।
  • ৩। অর্থব্যবস্থাকে সচল ও ঋণদানের জন্য ১৮০০ খ্রিস্টাব্দে "ব্যাঙ্ক অফ ফ্রান্স" প্রতিষ্ঠা করেন।
  • ৪। নতুন কর ধার্যের পরিবর্তে প্রচলিত কর গুলি যথাযথ আদায় এর উপর জোর দেন।
  • ৫। ব্যবসা-বাণিজ্যের উন্নতির জন্য চেম্বার অফ কমার্স, স্টক এক্সচেঞ্জ স্থাপন ও বন্দরগুলির উন্নয়নের কর্মসূচি গ্রহণ করেন।

আইন ও বিচার সংস্কার: 

নেপোলিয়নের সর্বাপেক্ষা উল্লেখযোগ্য কৃতিত্ব হল ফ্রান্সের প্রচলিত আইন গুলিকে বিধিবদ্ধ করে ২২৮৭ টি বিধি সম্মলিত "কোড নেপোলিয়ন" প্রবর্তন। এখানে ফৌজদারি, দেওয়ানী ও বাণিজ্য বিভাগের জন্য পৃথক পৃথক আইন রচনা করা হয়। আইনের দৃষ্টিতে সমতা বিধান, ধর্মীয় সহিষ্ণুতা, যোগ্যতা অনুযায়ী চাকরি, ব্যক্তি স্বাধীনতা ছিল এই আইনের মূল বৈশিষ্ট্য। ঐতিহাসিক লেফেভর এপ্রসঙ্গে মন্তব্য করেছেন, "The civil code become the Bible of the society." এ প্রসঙ্গে নেপোলিয়ন নিজে বলেছিলেন, "আমার যে কাজ চিরস্থায়ী হবে তা হলো আইন সংহিতা।"

শিক্ষা সংস্কার: 

নেপোলিয়ন জাতীয় শিক্ষানীতিতে বিশ্বাসী ছিলেন। তাঁর লক্ষ্য ছিল সম্রাট ও রাষ্ট্রের প্রতি অনুগত নাগরিক গড়ে তোলা। এই উদ্দেশ্যে তিনি মাধ্যমিক, কারিগরি ও একাধিক সামরিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন। ১৮০২ খ্রিস্টাব্দে ১০০ টি কেন্দ্রীয় বিদ্যালয়, "ডাইরেক্টর অফ পাবলিক ইনস্টিটিউশন " গড়ে তুলে শিক্ষা ক্ষেত্রে নিয়ন্ত্রণের প্রতিষ্ঠা করেন। উচ্চশিক্ষার উদ্দেশ্যে তিনি ১৮০৮ খ্রিস্টাব্দে প্রতিষ্ঠা করেন "ইউনিভার্সিটি অফ ফ্রান্স"। এছাড়াও তিনি বিভিন্ন শহরে প্রায় ২৯ টি লাইসি বা আবাসিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন।

ধর্ম সংস্কার:

ফরাসি সংবিধান সভা গির্জা সকল সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করলে পোপের সাথে রাষ্ট্রের সম্পর্ক তিক্ত হয়ে ওঠে। এই বিবাদের মীমাংসার জন্য নেপোলিয়ান পোপ নবম পায়াসের সাথে ১৮০১ তে এক "ধর্ম মীমাংসা চুক্তি" স্বাক্ষর করেন। চুক্তি অনুযায়ী,

  • ১। পোপ গির্জার জাতীয়করণ মেনে নেয়।
  • ২। ফরাসি সরকার রোমান ও ক্যাথলিক গির্জাকে স্বীকৃতি দেয়। 

তাই ঐতিহাসিক কমান্ড বলেছেন, "The concordat was a great victory for Bonaparte and a master stroke policy."

পরিশেষে বলা যায়, আলোচ্য সংস্কারগুলি ছাড়াও নেপোলিয়ন আরো কয়েকটি সংস্কার সাধন করেন। যেমন, ব্যবসা বাণিজ্যের উন্নতি, সেতু ও প্রণালী ব্যবস্থার উন্নতি প্রভৃতি। এছাড়া রাষ্ট্রের সেবা ও আনুগত্য স্বরূপ তিনি সামরিক ও অসামরিক বিভাগের ব্যক্তিদের "লিজিওন অব অনার" নামে উপাধি দানের ব্যবস্থা করেন। এককথায়, বিপ্লব পূর্ব ফ্রান্সে যখন চরম নৈরাজ্য চলছিল, যখন সমগ্র জাতি বিপর্যয়ের মুখে দাঁড়িয়ে ছিল, সেই অবস্থায় নেপোলিয়ান দেশের শান্তি ও সমৃদ্ধি ফিরিয়ে এনেছিলেন। তাই অধ্যাপক ডেভিড থমসন বলেছেন যে, "Bonaparte disciplined France was established order." এই সকল কারণে ঐতিহাসিক থমসন তাঁকে বলেছেন "The last and greatest of the 18th. Century benevolent despot."

Related Short Question:

প্রশ্ন: নেপোলিয়নের অভ্যন্তরীণ সংস্কারের মূল লক্ষ্য কী ছিল?

 উত্তর: নেপোলিয়নের লক্ষ্য ছিল ক্ষমতা সুসংহত করা, ফ্রান্সকে স্থিতিশীল করা এবং একটি শক্তিশালী কেন্দ্রীভূত সরকার প্রতিষ্ঠা করা।

 প্রশ্ন: নেপোলিয়নের উল্লেখযোগ্য আইনি সংস্কার কি ছিল?

 উত্তর: নেপোলিয়ন নেপোলিয়ন কোড প্রবর্তন করেছিলেন, একটি বিস্তৃত আইনি ব্যবস্থা যা সমতা, সম্পত্তির অধিকার এবং ধর্মীয় সহনশীলতা প্রচার করে।

 প্রশ্ন: নেপোলিয়ন কীভাবে ফ্রান্সে শিক্ষার পুনর্গঠন করেছিলেন?

 উত্তর: নেপোলিয়ন একটি কেন্দ্রীভূত শিক্ষাব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করেছিলেন, যার মধ্যে রাষ্ট্র-স্পন্সরকৃত লাইসিয়াম এবং সামরিক প্রশিক্ষণ ও প্রশাসনের জন্য বিশেষায়িত বিদ্যালয় রয়েছে।

 প্রশ্ন: নেপোলিয়ন কোন অর্থনৈতিক সংস্কার করেছিলেন?

 উত্তর: নেপোলিয়ন শিল্পায়নকে উন্নীত করতে, বাণিজ্যকে উদ্দীপিত করতে এবং মুদ্রাকে স্থিতিশীল করার জন্য অর্থনৈতিক নীতি বাস্তবায়ন করেছিলেন।

 প্রশ্ন: নেপোলিয়নের সংস্কার কীভাবে ফরাসি অর্থনীতিতে প্রভাব ফেলেছিল?

 উত্তর: নেপোলিয়নের সংস্কারের ফলে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি, অবকাঠামোগত উন্নয়ন এবং উন্নত কর সংগ্রহের দিকে পরিচালিত হয়।

 প্রশ্ন: নেপোলিয়ন ফরাসি আমলাতন্ত্রে কী পরিবর্তন করেছিলেন?

 উত্তর: নেপোলিয়ন আমলাতন্ত্রকে পুনর্গঠিত করেন, এটিকে আরও দক্ষ এবং যোগ্যতাভিত্তিক করে তোলে।

 প্রশ্নঃ নেপোলিয়নের ধর্মীয় সংস্কারগুলো কি কি ছিল?

 উত্তর: নেপোলিয়ন 1801 সালের কনকর্ড্যাটে স্বাক্ষর করেছিলেন, ফ্রান্সে ক্যাথলিক চার্চের অবস্থান পুনঃপ্রতিষ্ঠিত করে তার বিষয়গুলির উপর রাষ্ট্রীয় নিয়ন্ত্রণ বজায় রেখেছিলেন।

 প্রশ্ন: নেপোলিয়নের সংস্কার কীভাবে সামাজিক মর্যাদা এবং আভিজাত্যকে প্রভাবিত করেছিল?

 উত্তর: নেপোলিয়নের সংস্কারগুলি বংশগত আভিজাত্যের শক্তিকে হ্রাস করে, যোগ্যতা এবং কৃতিত্বের ভিত্তিতে অগ্রগতি প্রচার করে।

 প্রশ্ন: নেপোলিয়নের সংস্কারে সেন্সরশিপ কী ভূমিকা পালন করেছিল?

 উত্তর: নেপোলিয়ন তথ্য নিয়ন্ত্রণ এবং ভিন্নমত দমন করার জন্য সেন্সরশিপ ব্যবহার করেছিলেন, সংবাদপত্রের স্বাধীনতা এবং শৈল্পিক মত প্রকাশকে সীমিত করেছিলেন।

 প্রশ্ন: নেপোলিয়নের অভ্যন্তরীণ সংস্কার কি দীর্ঘস্থায়ী প্রভাব ফেলেছিল?

 উত্তর: নেপোলিয়নের অনেক সংস্কার তার শাসনের বাইরেও টিকে ছিল, যা ফ্রান্সের আইনি, শিক্ষাগত এবং প্রশাসনিক ব্যবস্থাকে কয়েক বছর ধরে প্রভাবিত করে।

Next Post Previous Post